Sun. Apr 21st, 2024

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সহবাস! প্রেমিকা অন্তঃসত্ত্বা হতেই বেপাত্তা প্রেমিক। স্ত্রীর মর্যাদা চেয়ে শ্বশুর বাড়ির সামনে ধর্নায অন্তঃসত্ত্বা প্রেমিকার

1 min read

 

আজকেরবার্তা, মালদা, ২৮ এপ্রিলঃ স্ত্রীর মর্যাদা চেয়ে প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্ণার বসলেন এক অন্তঃস্বত্তা প্রেমিকা। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সহবাস। প্রেমিকা অন্তঃসত্ত্বা হতেই বেপাত্তা প্রেমিক। ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নং ব্লকের রশিদাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরুয়া-আজিমপুর গ্রামে। ঘটনায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ধর্নায় বসা প্রেমিকার অভিযোগ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সহবাসের ফলে বর্তমানে অন্তঃস্বত্তা প্রেমিকা। বিষয়টি জানতে পেরেই বেপাত্তা প্রেমিক। প্রেমিকের সন্ধান না পেয়ে বুধবার ধর্ণায় বসে প্রেমিকা। পরে মারধোর করে প্রেমিকাকে ধর্না থেকে উঠিয়ে দেয় বলে অভিযোগ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে।

জানাগেছে, গত প্রায় দুবছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নং ব্লকের রশিদাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরুয়া-আজিমপুর গ্রামের বাসিন্দা আরব আলীর (২১) সাথে হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নং ব্লকের মহেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গাঙ্গনদীয়া মসজিদ পাড়ার বাসিন্দা তাবাসুম পারভিনের (২১)। তাবাসুম পারভিনের আগে তার মাসির ছেলের সঙ্গে তার প্রথম বিয়ে হয়েছিল। বিয়ের পরে দিল্লিতে থাকার সময় তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে আরব আলীর। শুরু হয়ে দুজনের ঘনিষ্ট মেলামেশা। পরবর্তীতে প্রেমিকা তাবাসুম প্রথম পক্ষের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে আরব আলিকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। তাবাসুমের অভিযোগ আরব আলিই তাকে প্রথম পক্ষের স্বামীকে ডিভোর্স দিতে বাধ্য করে নানান রকম মানসিক চাপ সৃষ্টি করে। এরপর থেকে তারা দীর্ঘ এক বছর ধরে স্বামী স্ত্রীর মতো শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। প্রেমীক আরব আলী কথা দিয়েছিল, ভালবাসার জন্য জীবন দিয়ে দেবে তবুও তাকে ছেড়ে কোথাও যাবে না। তাকে বিয়ে করে স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসবে। গত এক মাস আগে শরিয়ত আইন মোতাবেক চাঁচলে দুজনে বিয়েও করে ফেলেন বলে দাবী করেন তাবাসুম। এর মধ্যেই তিনি অন্ত;স্বত্তা হয়ে পড়েন। বিয়ের পরেও স্বামীর ঘরে ঠাঁই হয়নি তার। বিষয়টি আরব আলীকে জানানোর পর থেকেই তাবাসুমের সাথে একপ্রকার মেলামেশা বন্ধ করে দেয় বলে অভিযোগ। এরপরই আরবের খোঁজ না পেয়ে বুধবার শ্বশুরবাড়ির অধিকার আদায়ে রশিদাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরুয়া-আজিমপুর গ্রামে আরব আলীর বাড়ির সামনে ধর্ণায় বসে। তাবাসুম পারভিন বলেন, বিয়ের পরও নানা অছিলায় আরব তাঁকে তাঁর বাড়িতে নিয়ে যায়নি। বারবার শ্বশুরবাড়ি যেতে চাইলেও তাঁকে প্রায় জোর করে বাপের বাড়িতে থাকতে বাধ্য করেন আরব। অবশেষে বুধবার সকালে আরবের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসতে বাধ্য হন বলে জানান তিনি।

এই প্রসঙ্গে অভিযুক্ত প্রেমিকের মা বলেন, আরব বাড়িতে নেই, সে কোথায় গিয়েছে সেটাও তাদের অজানা। তার ছেলেকে ফাসানোর চেষ্টা করছে তাবাসুম। তার ছেলের সাথে কোনরকম প্রেমের সম্পর্ক নেই, এমনকি তার ছেলের সাথে তাবাসুমের বিয়ে হয়েছে বলেও জানা নেই বলে দাবী তার। এদিকে বুধবার তাবাসুম শ্বশুরবাড়িতে ঢুকতে চাইলে রাতে প্রচন্ড মারধর করে বলে অভিযোগ। মারধোরের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়েন তাবাসুম। রাত দশটা নাগাদ ধর্ণা থকে উঠয়ে পরিবারের লোকেরা বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে আসে নিয়ে আসেন তাবাসুমকে।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.