Mon. May 27th, 2024

অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মৃতা গৃহবধূকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেয় বলে অভিযোগ গৃহবধূর পরিবারের।

1 min read

আজকেরবার্তা, বালুরঘাট, ২৪এপ্রিলঃ আবারো বধূ নির্যাতনের শিকার হলো এক গৃহবধূ। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মৃতা গৃহবধূকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেয় বলে অভিযোগ গৃহবধূর পরিবারের। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট ব্লকের অমৃত খন্ড গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় মৃত ওই গৃহবধূর নাম উর্মিলা বোনেরা। গৃহবধূর বাপের বাড়ি ফতেপুর এলাকায়। মাত্র আড়াই মাস আগে অমৃত খন্ড গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা, মিঠুন ওরাও এর সাথে বিয়ে হয় উর্মিলার । বিয়ের পর থেকেই নানান কারণবশত গৃহবধূর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতো শ্বশুরবাড়ির লোকেরা বলে অভিযোগ পরিবারের। এরপর শনিবার রাতে ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার খবর চড়াও হতেই গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকদের খবর দেওয়া হয়।

মৃতা গৃহবধূর বাপের বাড়ির অভিযোগ, গৃহবধূকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। গত আড়াই মাস আগে ওই গৃহবধূর বিয়ে হয়। তারপর থেকেই ওই গৃহবধূর উপর তার শশুর বাড়ির লোকেরা অত্যাচার চালাতে বলে অভিযোগ। এরপরে গতকাল ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হলে তার পরিবারের লোকেরা অভিযোগ করেন যে গৃহবধূকে মেরে ঝুলিয়ে দিয়েছে তার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

মৃতা গৃহবধূর মা আরো অভিযোগ করে জানান, তার জামাই তাকেও ফোনে খুনের হুমকি দিত। ওই গৃহবধূ দু মাসের অন্তঃসত্তাও ছিলো বলে তার পরিবারের লোকেরা জানিয়েছে।উর্মিলা বেনেড়া গৃহবধূর হত্যার ঘটনায় তদন্তে নামে বালুরঘাট থানার পুলিশ। গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে মৃতা গৃহবধূর স্বামী কে আটক করেছে পুলিশ বলে জানা গেছে। ঘটনার অভিযোগ পাওয়ার পর বালুরঘাট থানার পুলিশ মৃতা গৃহবধূর দেহ উদ্ধার করে বালুরঘাট পুলিশ মর্গে পাঠায় ময়নাতদন্তর জন্য।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.