Thu. Apr 25th, 2024

এক ছাত্রীকে শাসন করার অভিযোগে ছাত্রীর অভিভাবকরা এক শিক্ষিকাকে স্ট্যাফ রুমে ঢুকে মারধোরের পাশাপাশি প্রায় বিবস্ত্র করার ঘটনায় অবিলম্বে ওই অভিভাবকদের গ্রেফতারের দাবিতে হিলি কলকাতা ৫১২ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী ও স্থানিও বাসিন্দাদের।

1 min read

আজকেরবার্তা, হিলি, ২৩জুলাইঃ এক ছাত্রীকে শাসন করার অভিযোগে ছাত্রীর অভিভাবকরা এক শিক্ষিকাকে স্ট্যাফ রুমে ঢুকে মারধোরের পাশাপাশি প্রায় বিবস্ত্র করার ঘটনায় অবিলম্বে ওই অভিভাবকদের গ্রেফতারের দাবিতে হিলি কলকাতা ৫১২ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী ও স্থানিও বাসিন্দাদের।

আজ সকাল থেকে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে স্থানিও স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ও ছাত্রীরা স্কুলের সম্মান রক্ষা করতে জাতীয় সড়কের ত্রীমোহিনীতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পরে এলাকার একটি প্রঅতিষ্ঠিত স্কুলের সুনাম নষ্ট হচ্ছে দেখে তারাও এসে বিক্ষোভে সামিল হয়ে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার পাশাপাশি দোষি অভিভাবকদের গ্রেফতারের দাবিতে সরব হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অবরোধ তুলে দেবার চেষ্টা করলেও স্থানিও প্রাক্তন ছাত্র ও ছাত্রীদের ক্ষোভের মুখে পড়ে।

হিলি থানার ত্রীমোহিনী এলাকার স্থানিও প্রাক্তন ছাত্রদের অভিযোগ গত বৃহষ্পতিবার স্কুল শিক্ষিকাকে হেনস্থ্যা ও মারধোরের ঘটনায় যারা যুক্ত তাদের পুলিশ গ্রেফতার করছে না কেবল একটি সম্প্রদায় ভুক্ত বলে। স্থানিও প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী ও স্থানিওদের আরো অভিযোগ যে ভাবে স্কুলের স্ট্যাফ রুমে ঢুকে ওই শিক্ষিকাকে মারধোর ও তার শারিরিক ভাবে হেনস্থ্যা ও শ্লীলতাহানী করা হয়ে তা এক কথায় অকল্পনীয় ও লজ্জার। এর ফলে স্কুলের সম্মান ও শিক্ষাক্ষেত্রের মর্যাদা দুই ই চরমহানী হয়েছে। বিষয়টি স্কুলের তরফে পুলিশে জানালেও দুদিন পার হয়ে গেলেও পুলিশ ওই দোষীদের গ্রেফতার করেনি। তাদের দাবি যতক্ষন না পুলিশ ওই দোষীদের গ্রেফতার করে শাস্তি দিচ্ছে ততক্ষন পথ অবরোধ চলবে।

এদিকে সকাল থেকে ব্যাস্ত জাতীয় সড়কে অবরোধ চলায় বালুরঘাট ও হিলি ও কলকাতা এবং শিলিগুড়ি যাতায়াত সড়কে প্রচুর যানবাহন আটকে পরে। যার ফলে দুদিকের গাড়ীতে আটকে পরে প্রচুর যাত্রী সাধারন।

অপরদিকে ঘটনার সুত্রপাত গত বৃহষ্পতিবার , দক্ষিন দিনাজপুর জেলার হিলি থানার ত্রীমোহিনীতে অবস্থিত প্রতাপ চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের ঘটনা, বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী জার্নাতুন খাতুন । বৃহস্পতিবার বিদ্যালয়ের বারান্দায় ঘোরাঘুরি করছিল সে । তাকে শাস্তি দিতে তার কান টেনে দেন বিদ্যালয়ের এক শিক্ষিকা চৈতালী চাকী । তার পরেই ঘটে বিপত্তি । ছাত্রীর কথা শুনে তার পরিবার থেকে লোকজন সহ প্রতিবেশিরাও একসাথে চড়াও হয় বিদ্যালয়ে । স্টাফ রুমে ঢুকে একপ্রকার উলঙ্গ করে মারধোর করা হয় ওই শিক্ষিকাকে । এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে । আতঙ্কিত হয়ে ওঠেন বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক শিক্ষিকারা । শুক্রবার এই ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কমল কুমার জৈন’এর মধ্যস্ততায় মীমাংসা করতে আসেন ব্লক প্রশাসনের তরফে জয়েন্ট বিডিও এবং জেলা স্কুল পরিদর্শক । পরিস্থিতি সামাল দিতে মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী । প্রধান শিক্ষকের দাবী মীমাংসা হয়েছে ।
তবে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র দীপঙ্কর ঘোষ জানিয়েছেন, অবিলম্বে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে হবে প্রধান শিক্ষককে ।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.