Thu. Feb 29th, 2024

এন‌আরসি আতঙ্কে বালুরঘাট বিডিও অফিসে ডিজিটাল রেশন কার্ড করাতে এসে সানস্ট্রোকে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির।

1 min read

আজকের বার্তা, বালুরঘাট, ২০ সেপ্টেম্বর ঃ- বালুরঘাট বিডিও অফিসে ডিজিটাল রেশন কার্ড করাতে এসে সানস্ট্রোকে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। মৃতের নাম মন্টু সরকার (৫২)। বাড়ি বালুরঘাট ব্লকের জলঘর গ্রাম পঞ্চায়েতের পলাশডাঙ্গা এলাকায়। ঘটনায় বালুরঘাট বিডিও অফিসে চাঞ্চল্য ছড়ায়। পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

প্রসঙ্গত, আসামে এনআরসি তালিকাতে প্রায় ৯ লক্ষ মানুষের নাম বাদ পড়ে। বাংলাতেও এনআরসি আতঙ্কে সাধারণ মানুষ। শুক্রবার বালুরঘাট ব্লক অফিসে ডিজিটাল রেশন কার্ড করানোর কথা। মূলত এন‌আরসি আতঙ্কে বিডিও অফিসে ডিজিটাল রেশন কার্ডের ফর্ম ফিলাপ করতে ভিড় জমিয়েছিলেন প্রায় হাজার খানেক মানুষ। সেখানেই বালুরঘাট থানার জলঘর এলাকার বাসিন্দা পেশায় কৃষক মন্টু সরকার রেশন কার্ডের ফর্ম ফিলাপ করাতে এসে লাইনে দাড়ান। এরপর ভীড়ের চাপে অসুস্থ হয়ে পড়েন ঐ ব্যক্তি। ঘটনায় বালুরঘাট বিডিও অফিসে চাঞ্চল্য ছড়ায়। সাথেসাথে তাকে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালের চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। চিকিৎসকদের প্রাথমিক অনুমান সানস্ট্রোক এর ফলে মৃত্যু হয়েছে তার। এদিকে পরে পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে তা ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

এবিষয়ে মৃতের প্রতিবেশী মোক্তার মণ্ডল জানান, এনআরসির আতঙ্ক তাদের গ্রামে ছড়িয়েছে। যাদের ডিজিটাল রেশন কার্ড নাই তাদের নাম তুলতে হবে। তাই গ্রামের সকলে মিলেই বালুরঘাট বিডিও অফিসে আসেন। সেখানে মন্টু সরকারের সান স্ট্রোকে মৃত্যু হয়। মৃত ব্যক্তি তাদের প্রতিবেশী। সাধারণ মানুষ এনআরসি নিয়ে ব্যাপক আতঙ্কে রয়েছে।

অন্য দিকে এবিষয়ে বালুরঘাটের বিডিও অনুজ শিকদার জানান, তিনি জেলা প্রশাসনিক ভবনে মিটিংয়ে ছিলেন। বিষয়টি জানতে পেরেই ঘটনাস্থলে যান। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন তারা। এবং ওই ব্যক্তিকে সরকারি সব রকম সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.