Thu. Apr 25th, 2024

কোচবিহারের প্রাণের ঠাকুর মদনমোহনের জাঁকজমকভাবেই পালিত হল প্রায়শ্চিত্ত ও নৌকাবিহার।

1 min read

আজকেরবার্তা, কোচবিহার,১৭ এপ্রিলঃ ভাঙ খেয়ে ভুলবশতঃ পাঠার মাংস খাওয়ার খেসারত। দেবতাদের বিধানে পাঠার ভুঁড়ির জলে স্নান করে প্রায়শ্চিত্ত করেছিলেন মদনমোহন।পুরান অনুসারে এমনই ঘটনার বিবরণ আছে কোচবিহারে।সেই প্রাচীন ঐতিহ্য মেনে নির্দিষ্ট তিথি মেনে প্রতিবছরই মদনমোহন বিগ্রহকে প্রায়সচিত্ত করতে দেখা যায় কোচবিহারের সাগরদিঘিতে। করোনার কারনে গত দুবছর সাগরদিঘিতে এই প্রাচীন রীতি বন্ধ থাকলেও এবছর বেশ জাঁকজমকভাবেই পালিত হল মদনমোহনের নৌকাবিহার।পুরান অনুসারে কথিৎ আছে, কামদেবের বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন কোচবিহারের মদনমোহন ঠাকুর। আমন্ত্রণ পেয়ে সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন কোচবিহারের এই প্রাণের দেবতা। কামদেবের বিয়ের অনুষ্ঠানে তিনি খেয়ে ফেলেন ভাঙের প্রসাদ। তাতেই তিনি নেশাগ্রস্থ হয়ে ভুল করে খেয়ে ফেলেন পাঠার মাংস। এরপরই বিষয়টি আঁচ করতে পেড়ে মদনমোহন শরণাপন্ন হন অন্যান্য দেবতাদের। সেই দেবতারা বিধান দেন পাঠার দেহে ভুঁড়ির ভেতরে থাকা জল দিয়ে স্নান সেরে প্রায়শ্চিত্ত করার। সেই বিধান মাথা পেতে মেনে নেন তিনি। এরপরই কোচবিহারের সাগরদিঘিতে নৌকাবিহারের মাধ্যমে পাঠার ভুঁড়ির জল দিয়ে স্নান করে প্রায়শ্চিত্ত করেন। সেই প্রায়শ্চিত্তের সময় অন্যন্য দেবদেবীরা উপস্থিত ছিলেন সাগর দিঘির পারে। সেই প্রাচীন রীতি আজও চল আসছে কোচবিহারে।শবিবার ছিল সেই নির্দিষ্ট তিথি মদনমোহনের নৌকাবিহারের। সেইমতো এদিন সন্ধ্যায় মদনমোহন বাড়ি থেকে পালকিতে চাপিয়ে সাগরদিঘিতে আনা হয় পালকিতে চাপিয়ে। ঢাকঢোল বাজিয়ে উলুশংখধ্বনীর সাহায্যে ভক্তরা নিয়ে আসেন। সেখানে একটি বড় নৌকায় রাখা হয় মদনমোহনের বিগ্রহ। সেখানে পাঠার দেহের ভুড়ির জল দিয়ে মদনমোহনকে স্নান করান দুয়ারে বক্সি। এরপর নৌকায় সাগরদিঘির চারপাশে ঘুরিয়ে সাগরদিঘির জলে মহাস্নান করানো হয় মহা বিগ্রহকে।প্রাচীন কাল থেকেই এই রীতি মেনে প্রতিবছর মদন মোহনের নৌকা বিহারের মাধ্যমে প্রায়শ্চিত্ত অনুষ্ঠান হয়ে আসছে কোচবিহারের প্রাণকেন্দ্র সাগর দিঘিতে। রাজ আমলে মহা ধুমধাম করে এই অনুষ্ঠান হতো বলে জানা গিয়েছে। করোনার আবহ কাটিয়ে এবছরও মহাধূমধাম করে পালিত হয় মদনমোহনের প্রায়শ্চিত্ত অনুষ্ঠান। এদিন এই অনুষ্ঠান দেখতে সাগর দিঘির পাড়ে ভিড় জমিয়েছিলেন কয়েকশ মানুষ। নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ছিল জোরদার। করোনার আবহ কাটিয়ে এবছর এই অনুষ্ঠান সচক্ষে প্রত্যক্ষ করতে পেরে খুশি উপস্থিত প্রত্যেকেই।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.