Thu. Feb 29th, 2024

বালুরঘাট দিবস পালিত হল শনিবার।

1 min read

আজকের বার্তা, বালুরঘাট, ১৪ সেপ্টেম্বরঃ- বালুরঘাট দিবস পালিত হল শনিবার। ১৯৪২ সালের ভারত ছাড়ো আন্দোলনে তিন দিন স্বাধীনতার স্বাদ পান বালুরঘাটবাসী। ৪২ এর আন্দোলনে ১৪ সেপ্টেম্বর বালুরঘাটের ট্রেজারি বিল্ডিং থেকে বৃটিশ পতাকা নামিয়ে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন স্বধীনতা সংগ্রামীরা। সেদিনটি স্মরণ করে এদিন বালুরঘাট দিবস পালন করে বালুরঘাট দিবস উদযাপন কমিটি।

১৯৪২ সালে ভারত ছাড়ো আন্দোলনে সামিল ছিল বালুরঘাটবাসী। এলাকার বাসিন্দা স্বাধীনতা সংগ্রামী সরোজ রঞ্জন চট্টোপাধ্যায় সহ অন্যান্য স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নেতৃত্বে বালুরঘাট শহরের উপকণ্ঠে ডাঙ্গী গ্রামে হাজার হাজার মানুষ জমায়েত হন আগের দিন রাতে। ১৪ সেপ্টেম্বর তারা বালুরঘাটে এসে শহর অবরুদ্ধ করে দেয়। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় আদালত, পোস্ট অফিস, প্রশাসনিক ভবনে। তৎকালীন প্রশাসনিক ভবন বর্তমানে ট্রেজারি বিল্ডিং থেকে বৃটিশ পতাকা নামিয়ে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পালিয়ে যান বৃটিশ কর্তারা। তিন দিন স্বাধীন থাকার পর বৃটিশ সেনা ফিরে এসে পুনরায় দখল নেয় বালুরঘাটের। চলে ধরপাকড়, অত্যাচার। সেদিনটি স্মরণ করে এদিন পালিত হয় বালুরঘাট দিবস। বালুরঘাট দিবস উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে এদিন সকালে ডাঙ্গী গ্রামের শহীদ বেদিতে মাল্যদান করা হয়। পতাকা উত্তোলন করেন জেলার মুখ্য স্বাস্হ্য আধিকারিক ডাক্তার সুকুমার দে। ঊপস্হিত ছিলেন পীযূষ কান্তি দেব, সুভাষ চাকী, সুশভোন চ্যাটার্জী, বিপ্লব খাঁ সহ বালরঘাটের বিশিস্ট মানুষজন। এরপর সকাল 9 টায় ক্ষুদিরাম বসুর মুর্তিতে মালা পরিয়ে মিছিল শুরু করে জেলা প্রশাসনিক ভবনে গিয়ে স্মৃতি স্তম্ভে শহীদদের উদ্দেশ্য মাল্যদান করা হয়।

বালুরঘাট দিবস উদযাপন কমিটির পীযূষ কান্তি দেব জানান, ৯ আগস্ট মহত্মা গান্ধী ভারত ছাড়ো আন্দোলনের ডাক দেন। তার ঢেউ আছড়ে পড়ে বালুরঘাটেও। ১৩ ই সেপ্টেম্বর রাতে বালুরঘাট শহরের আশেপাশে এলাকার মানুষেরা জমায়েত হয় ডাঙ্গী গ্রামে। এরপর ১৪ সেপ্টেম্বর হাজার হাজার স্বাধীনতা সংগ্রামী বালুরঘাট শহরের দখল নেয়। ভারতের মধ্যে পঞ্চম ও বাংলার মধ্যে দ্বিতীয় স্থান যেখানে তিন দিন স্বাধীন ছিল এলাকা। সেই কারণেই এই দিনটিকে বালুরঘাট দিবস হিসাবে উদযাপন করা হয় বলে জানান তিনি।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.