Sun. Apr 21st, 2024

শিশু খুনের ঘটনায় আজও থমথমে পরিবেশ। ধৃত 5 জনকে আদালতের নির্দেশে নেওয়া হল পুলিশি হেফাজতে।

1 min read

আজকেরবার্তা, বালুরঘাট, ৭ নভেম্বরঃ শিশু খুনের ঘটনায় আজও আতঙ্কে রয়েছে বালুরঘাটের এ কে গোপালন কলোনি। থমথমে পরিবেশ। শোকের ছায়া নেমেছে বালুরঘাট শহরের এ কে গোপালন কলনী সহ সারা শহর জুরে। অপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে সরব এলাকাবাসী। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে রয়েছে পুলিশি পাহারা।

বালুরঘাট থানার পুলিশ শিশুটির মৃতদের ময়নাতদন্তের পর এলাকায় নিয়ে আসে কিছু সময়ের জন্য তারপর আবার পুলিশি হস্তক্ষেপে মৃতদের সৎকারের জন্য নয়ে যাওয়া হয় । কান্নায় ভেঙ্গে পরে পরিবার ও প্রতিবেশীরা। রবিবার রাতে 4 জন ধৃতকে জেরা করতেই উঠে আসে অপর এক জনের নাম। বালুরঘাট থানার পুলিশ গ্রেফতার করে পঞ্চম অভিযুক্তকে। ধৃতদের পেশ করা হয় জেলা আদালতে। দশ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

রাত ভর নিখোঁজ থাকার পর গতকাল বস্তা বন্ধ অবস্থায় উদ্ধার হয় অপহৃত বাচ্চার মৃতদেহ। বাড়ির পাশে খাড়িতে বস্তা বন্ধ অবস্থায় খাড়িতে পুতে ফেলা হয়েছিল দীপ হালদার নামক আঠ বছরের শিশুর মৃতদেহ। শিশুটিকে খুন করে অভিযুক্ত পরিবার পালিয়ে যায়। অপহরণের অভিযোগ পেয়ে তদন্ত নামে বালুরঘাট থানার পুলিশ। এরপর বালুরঘাট ব্লকের রাজুয়া থেকে অপরাধীদের গ্রেফতার করে বালুরঘাট থানার পুলিশ। অভিযুক্ত মানস সিংহের পরিবারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে শিশু মৃত্যুর ঘটনা। এরপর অপরাধীদের বাড়ির পেছনে খাড়ি থেকে বস্তাবন্দী অবস্থায় উদ্ধার হয় শিশুর মৃতদেহ।
ঘটনার খবর চড়াও হতেই উত্তেজিত এলাকাবাসী ভাংচুর চলায় অপরাধীর বাড়িতে। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় অপরাধীর বাড়ির সমস্ত জিনিসপত্রে। উত্তেজিত জনতা ক্ষোভে ফেটে পরে। পাচারের উদ্দেশ্য নিয়ে অপহরণ করা হয় এই শিশুটিকে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীদের। পরবর্তীতে সুবিধা করতে না পারায় খুন করা হয় দীপ হালদার কে। উপযুক্ত শাস্তি ও ফাঁসির দাবি জানিয়েছে একালাবাসি।

ময়নাতদন্তের পর সোমবার বেলা বারোটা নাগাদ পুলিশ মর্গ থেকে শববাহি গাড়ি করে আট বছরের মৃত শিশু দীপ হালদারের মৃতদেহ কিছুক্ষণের জন্য নিয়ে আসা হয় এলাকায় আত্মীয় পরিজনদের কাছে। মাত্র ৮ বছরের একটি শিশুর নৃশংস হত্যার পর তার মৃতদেহ এলাকায় নিয়ে আসায় এলাকাবাসীদের ঢল নামে বালুরঘাট এ কে গোপালন কলোনী এলাকা সংলগ্ন মাঠে। কিছুক্ষণ মৃতদেহ পরিবারের কাছে থাকার পর পুলিশি হস্তক্ষেপে আবার মৃত দেহটি নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে বালুরঘাট পুরসভার কতৃপক্ষ ও বালুরঘাট থানার পক্ষ থেকে বালুরঘাট শহরের ক্ষীদিরপুর মহা শ্মশানে নিহত শিশুর মৃতদেহটি সৎকার করা হয়।

অপর দিকে রবিবার রাতে 4 জনকে গ্রেফতারের পর জেরা করে পুলিশ। পুলিশি জেরা থেকে উঠে আসে অপর এক অভিযুক্তের নাম। সোমবার ভোর রাতে পঞ্চম অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে বালুরঘাট থানার পুলিশ। ধৃতদের 14 দিনের পুলিশি রিমান্ডের দাবি জানিয়ে বালুরঘাট জেলা আদালতে পেশ করা হয় ধৃত ৫ জনকে। সোমবার আদালতের বিচারের পর বালুরঘাট জেলা আদালতের সরকারি আইনজীবী জানান, আই পি সি-র ৩৬৩, ৩৬৫, ৩০২, ৩০১, ১২০, ৩৪ ধারায় ধৃতদের বিরুদ্ধে মামলা ঋজু করা হয়েছে। ঘটনায় ১০ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। ডি এল এস এ থেকে জামিনের আবেদন করা হলে জামিনের আর্জি খারিজ করে পুলিশ।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.