Thu. Apr 25th, 2024

কেন্দ্রীয় ফুড সাপ্লাই অফিস স্থানান্তরের প্রতিবাদে বুধবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি দিল তৃণমূল।

1 min read

আজকের বার্তা, বালুরঘাট, ৬ নভেম্বর ঃ- কেন্দ্রীয় ফুড সাপ্লাই অফিস বা এফসিআই-র দফতর স্থানান্তরের প্রতিবাদে বুধবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি দিল তৃণমূল। কেন্দ্রশাসিত সংস্থা এফসিআই বা দা ফুড কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়াকে বালুরঘাট থেকে তুলে মালদা জেলায় নিয়ে যাওয়ার চক্রান্তের প্রতিবাদে আন্দোলনে নামল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন দুপুরে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষের নেতৃত্বে জেলা শাসকের কাছে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। সঙ্গে ছিলেন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি দেবাশীষ মজুমদার সহ জেলা কমিটির অন্যান্য নেতৃত্ব। বেলা বারোটা নাগাদ দক্ষিণ দিনাজপুর তথা বালুরঘাটের প্রশাসনিক ভবনে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্ব সহ সমর্থকরা জমায়েত হয় ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা শাসকের কাছে লিখিত আবেদনপত্র জমা দেয়। কেন্দ্রীয় ফুড সাপ্লাই অফিস বা এফসিআই-র দফতর স্থানান্তর করা যাবে না বলে সাফ জানিয়েছেন তৃণমূল জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষ। এনিয়ে তারা আগামী দিনে আন্দোলনে নামবেন বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, পশ্চিম দিনাজপুর ভাগ হয়ে যাওয়ার পর বিভিন্ন দপ্তর গুলি যেমন ফরেস্ট, বি এস এন এল, ইনকাম ট্যাক্স, সমবায় সহ অনেকগুলি দপ্তরের হেড অফিস এখনো দক্ষিণ দিনাজপুরে আসেনি। এই অফিসগুলির অনেক কাজ জেলাবাসীদের এখনো উত্তর দিনাজপুরে গিয়ে করতে হয়। তার উপর এফসিআই অফিসটি উঠে গেলে জেলার গুরুত্ব আরো কমে যাবে। বিগত পশ্চিম দিনাজপুর থাকাকালীন কেন্দ্রীয় সংস্থার এফসিআই গোডাউন সহ অফিসটি বালুরঘাটে বহু বছর ধরেই রয়েছে। এই অফিসটি থাকার জন্য বর্তমানে দক্ষিণ দিনাজপুরের সমস্ত খাদ্যশস্য যেমন ধান চাল গম সরিষা ইত্যাদি খাদ্যদ্রব্য এখানকার জেলাবাসীরা যাহাতে সহজেই সরকারি বিনি বন্টন ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে পায় তার ব্যবস্থা করে থাকে। বিভিন্ন রেশনের দোকানে চাল গম আটা সহ অন্যান্য খাদ্য দ্রব্য দক্ষিণ দিনাজপুরের সদর শহর বালুরঘাট থেকেই গ্রামে গঞ্জে সাপ্লাই হয়। এছাড়াও বন্যা বা খরার সময় সাধারণ মানুষের খাদ্যদ্রব্যের যাতে টান না পড়ে সেই জন্য এই অফিসটি বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। হঠাৎ এফসিআই অফিসটি মালদায় স্থানান্তরিত হলে জেলার ব্যবসায়ী মহল থেকে কৃষক ও সাধারণ মানুসের মধ্যে সমস্যা দেখা দেবে।
এদিন দক্ষিণ দিনাজপুর তৃণমূল জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষ বলেন “দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে এফসিআই অফিসটি তুলে নিয়ে গিয়ে মালদায় বসানোর চক্রান্তটি অনেকদিন ধরেই চলছে। আমি দক্ষিণ দিনাজপুরের সাংসদ থাকাকালীন দিল্লিতে এনিয়ে দরবারও করেছি কিন্তু তখন তারা এই অফিস টিকে নিয়ে যেতে পারেনি। দক্ষিণ দিনাজপুরের সাধারণ মানুষ ও কৃষকদের স্বার্থে এই আন্দোলনে নেমেছে দক্ষিণ দিনাজপুর তৃণমূল কংগ্রেস। তিনি বলেন এই অফিস উঠে গেলে ব্যবসায়ী থেকে সাধারণ কৃষক তাদের খাদ্য দ্রব্য সংক্রান্ত কোন কাজ করতে গেলে এখান থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে মালদায় যেতে হবে এতে তাদের ভীষণ অসুবিধা হবে।
তিনি আরো বলেন বর্তমানে যিনি বিজেপির সাংসদ আছেন তার কাছে জেলাবাসি গিয়েছিলো যাতে বালুরঘাটের এফ সি আই অফিসটি উঠে না যায়, কিন্তু তিনি এ ব্যাপারে কোন রকম দিশা দেখাতে পারেননি বা তিনি এই ব্যাপারে কোন কিছু করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। আমরা চাই ফুড সাপ্লাই অফ ইন্ডিয়ার এই অফিসটি যাতে বালুরঘাটে থাকে। যদি কেন্দ্রীয় সরকার এ ব্যাপারে এই অফিসটি তুলে নিয়ে যাওয়ার চক্রান্ত করে তবে আমরা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে আগামী দিনে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবো।

যদিও এ প্রসঙ্গে সাংসদ ডক্টর সুকান্ত মজুমদার জানান, এফসিআই দপ্তরের স্থানান্তর বিষয়টি নিয়ে মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে। নোংরা রাজনীতি করা হচ্ছে। এই দপ্তর স্থানান্তর বিষয়টি কাজের সুবিধার্থে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল ২০১৫ সালে। সপ্তম সংসদ যে বিষয়ে বলছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। কয়েকটি এলাকার এফসিআই একত্রিত করে ধাপে ধাপে কাজ করা হচ্ছে।

You may have missed

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.